Header Ads

অঞ্জন বনাম দেবাশিস, সৃঞ্জয় লড়াই সম্ভবত সমঝোতার পথেই

ইনসাইড নিজস্ব, কলকাতা: শুক্রবারের ম্যারাথন বৈঠক। হাজির বাগান শিবিরের সব রথী, মহারথীরা। লক্ষ্য আলোচনার মাধ্যমে সমাধানসূত্র বের করা। আলোচনার পর আলোচনা হল। কিছু কথা বুঝিয়ে দিল গভীর কোনও কিছুর ইঙ্গিত। কিছু ছবি আবার বুঝিয়ে দিল সমঝোতার পথ।

মিটিং চলাকালীন টুটু বসু যেমন বললেন অঞ্জন মিত্রকে, 'সোহিনী আমার মেয়ের মতো আর দেবাশিস অঞ্জনের ছেলের মতো।' এই কথা কীসের ইঙ্গিত? একটা কথা এতদিনে প্রায় সবাই আন্দাজ করতে পেরেছে যে দেবাশিসের মূল সমস্যা অঞ্জন। আর তার কারণ আবার সচিব-কন্যা সোহিনীকে ক্লাবের শীর্ষভাগে বসানোর চেষ্টা। যেটা করলে তাঁর ওপর কোপ পড়ার সমূহ সম্ভাবনা ছিলই। তাই সৃঞ্জয়-সহ আরও অনেককে নিয়ে বিদ্রোহের রাস্তায় হেঁটেছিলেন দেবাশিস।

এদিনের মিটিং কিন্তু একটা আপোস আর সমঝোতার রাস্তাই তুলে ধরছে খানিকটা হলেও। দেবাশিসও থাকল আবার সোহিনীও থাকল। কোনও পক্ষেরই কোনও সমস্যা নেই।

আরও একটা ছবি। মিটিংয়ের প্রায় শেষের দিকে অঞ্জন-টুটুর হাতে হাত। যে বন্ধুত্বের হাত বহুদিনের অটুট বন্ধন। অর্থাৎ যা হয়ে গেছে হয়ে গেছে, চলো আবার আমরা একসাথে পথ হাঁটি ক্লাবের স্বার্থে। কয়েকদিন আগেও দুই বন্ধু মিটিং করছিলেন। এদিনের বৈঠক তারই ফল আসলে। দুই বন্ধুতে আলোচনা আগেই সারা হয়ে গিয়েছিল।

যাকগে আমরা শুধু কিছু সম্ভাবনা এবং সম্ভাব্য সমঝোতার কথা তুলে ধরলাম। দেখাই যাক আগামি দিনে কী অপেক্ষা করে আছে। আর সমঝোতার কথাই যদি শেষ পর্যন্ত সত্যি হয়, তাহলে কি বলতে হবে যে সত্যজিৎ বলির পাঁঠা হলেন! কী জানি বাবা!

No comments

Powered by Blogger.